1. jashoreshop@gmail.com : Rose News : Rose News
  2. admin@rosenewsbd.com : rosenews :
সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ১১:১৯ অপরাহ্ন

৬০ লাখ সহ ব্যাংক চোর গ্রেফতার

  • Update Time : শুক্রবার, ২৬ জুন, ২০২০
  • ১৩৮ Time View


পুরান ঢাকায় ন্যাশনাল ব্যাংকের গাড়ি থেকে ৮০ লাখ টাকার বস্তা চুরির ঘটনায় জড়িতদের চারজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ বলছে, ছোটখাট চুরি করা এই চক্রটি ‘না বুঝেই’ ব্যাংকের ওই টাকা সরিয়েছিল।

এই ঘটনায় জড়িত হান্নান ওরফে রবিন ওরফে সাইফুল ইসলাম (৫০), তার স্ত্রী পারভীন বেগম (৩১) এবং দুই সহযোগী মো. বাবুল মিয়া (৫৫) ও মো. মোস্তফা (৫২) কে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

চুরি হওয়া ৮০লাখ টাকার মধ্যে ৬০ লাখ টাকা তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় বাবুল দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দিও দিয়েছেন।

থানা পুলিশ প্রথমে মামলাটি তদন্ত করলেও পরে তদন্তের ভার ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের লালবাগ বিভাগ এর উপর পড়ে। গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার রাজীব আল মাসউদ জানান এই চক্রের দলনেতা হান্নান আর তাদের সব কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করতেন তার স্ত্রী পারভীন।

“চুরি হওয়া প্রায় সব টাকাই পারভীনের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। কখন কী করতে হবে সে বিষয়ে সবাই পারভীনের সঙ্গে যোগাযোগ করত এবং সে অনুযায়ী কাজ করত।”

টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য হান্নান বিভিন্ন ব্যাংকে গিয়ে ওঁৎ পেতে থাকতেন। ব্যাংক থেকে টাকা তুলে কেউ ব্যাগে রাখলে সুযোগ বুঝে সেই টাকা নিয়ে পালিয়ে যেতেন তিনি।

গত ১০ মে পুরান ঢাকায় ন্যাশনাল ব্যাংকের বিভিন্ন শাখা থেকে টাকা সংগ্রহ করে মতিঝিলে ফিরছিল ন্যাশনাল ব্যাংকের একটি গাড়ি। চালকের পাশাপাশি একজন কর্মকর্তা এবং দুজন নিরাপত্তাকর্মীও ছিলেন ওই গাড়িতে।

পুরান ঢাকার বাবুবাজার আসার পর গাড়ির একজন নিরাপত্তাকর্মী দেখতে পান ৮০ লাখ টাকার একটি ব্যাগ গাড়িতে নেই। ওই ঘটনায় ন্যাশনাল ব্যাংকের এক কর্মকর্তা বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন।

এর পরে তদন্ত শুরু করে ইসলামপুরে ব্যাংকের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্লেষণ করা হয় জানিয়ে পুলিশের কোতোয়ালি জোনের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার সাইফুল আলম মুজাহিদ বলেন। ফুটেজে ব্যাংক কর্মকর্তা ও একজন নিরাপত্তাকর্মীকে গাড়ি থেকে বেরিয়ে উপরে যেতে দেখা যায়। তখন টাকার গাড়িতে একজন নিরাপত্তাকর্মী ও গাড়িচালক ছিলেন।

“এই সময় চারজন কৌশলে গাড়ির কাছে এসে টাকার বস্তাটি সরিয়ে নিয়ে যায়।”
এরপর এই চারজনের খোঁজে নামে পুলিশ। তবে ভিডিওটি স্পষ্ট ছিল না বলে আসামি শনাক্ত করতে বেশ বেগ পেতে হচ্ছিল পুলিশের। সে সময় একজন ‘সোর্স’ পুলিশকে জানায়, পুরান ঢাকায় এই ধরনের কাজ করে ‘ব্রিফকেস হান্নান’।

সাইফুল আলম বলেন, “হান্নান আগে পকেট মারতো, এখন টানা পার্টির কাজ করে। অর্থাৎ ভ্যানগাড়ি থেকে দামি মালের বস্তা সরায়, ব্যাংক থেকে টাকা তুলে কেউ ব্যাগে রাখলে কৌশলে সেই টাকা নিয়ে যায়।”

তদন্ত করতে গিয়ে ২০১৮ সালে মতিঝিলের এক ব্যাংক থেকে এক গ্রাহকের টাকার ব্যাগ নিয়ে যাওয়ার একটি ফুটেজ পায় পুলিশ।

ওই ফুটেজ দেখে এবং আরও কয়েকজন পকেটমারের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে হান্নানের অবস্থান খুঁজে বের করেন গোয়েন্দা পুলিশ।
এরপর গত ২ জুন পুরান ঢাকার গেণ্ডরিয়া ও ভৈরব থেকে হান্নানসহ ওই চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে দুটি আগ্নেয়াস্ত্র এবং চুরি হওয়া ৬০ লাখ টাকাও উদ্ধার করা হয় বলে জানান সাইফুল।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 Rosenewsbd